ঢাকা ১০:২১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
Logo রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অগ্নিকাণ্ড Logo কলকাতার কৃষ্ণ মাটিতে ফেলা হয়েছে এমপি আনারের মরদেহের কিছু টুকরো Logo শনিবার রাজধানীর যেসব সড়ক অর্ধবেলা বন্ধ থাকবে Logo সাড়ে ৩ লাখ টাকা উদ্ধার, খাতুনগঞ্জে ক্যাশবাক্স ভেঙে চুরি Logo এপ্রিলে সড়কে ঝরেছে ৬৭৯ প্রাণ, ক্ষতি ২ হাজার কোটি টাকার বেশি Logo চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডে ৪৬ বিদ্যালয়ের শতভাগ পাস Logo বোয়ালখালীতে সাংবাদিক কে, এইচ, সামজাদের জন্মদিন পালিত Logo স্মার্ট পৌরসভা গড়তে সকলের সহযোগিতা চায়লেন পৌরমেয়র জহুর  Logo কাপ্তাই রাস্তার মাথায় ছোট যানবাহন টিকটিকি প্রবেশ করিলে চাঁদা দিতে হবে। Logo বোয়ালখালীতে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আত বাংলাদেশ  পোপাদিয়া শাখার শুকনা ইফতার বিতরন
ই-পেপার দেখুন

আগুনে প্রাণ গেল এক পরিবারের পাঁচজনের

রাঙ্গুনিয়ায় বসতবাড়িতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় শিশুসহ একই পরিবারের পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন ওই পরিবারের আরও একজন। 

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে উপজেলার পারুয়া ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ড মহাজন পাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

অগ্নিকাণ্ডে ঘটনায় মৃত ব্যক্তিরা হলেন খোকন বসাকের বাবা কাঙ্গাল বসাক (৬০), মা ললিতা বসাক (৫৭), স্ত্রী লাকি বসাক (৩৩), ছেলে সৌরভ বসাক (১২) ও মেয়ে শায়ন্তী বসাক (৬)। আহত খোকন বসাককে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে, তাঁর শরীরের প্রায় ৮০ ভাগ পুড়ে গেছে বলে জানা গেছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রাঙ্গুনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহাবুব মিল্কি ও রাঙ্গুনিয়া ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান সুমন।

রাঙ্গুনিয়া ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান সুমন বলেন, “বৃহস্পতিবার দিনগত রাত ২টা ১০ মিনিটের দিকে আগুনের খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাঁরা দরজা ভেঙে একজনকে জীবিত উদ্ধার করতে পারলেও আগুনে পুড়ে মারা গেছে ৫জন। এছাড়াও বাড়ির পাঁচটি কক্ষ থাকায় কে কোন কক্ষে শুয়ে ছিলেন, সেটা শনাক্ত করা কঠিন ছিল। ভোর রাত ৪টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ওই বাড়ির রান্নাঘরের চুলা থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে”।

রাঙ্গুনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহাবুব মিল্কি জানান, “পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করেছে। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে”।

পারুয়া ইউপি চেয়ারম্যান একতেহার হোসেন জানান, “স্থানীয় সবজি ব্যবসায়ী খোকন বসাকের বাড়িতে রাত দেড়টার দিকে আগুন লাগে। রান্নাঘর থেকেই আগুনের সূত্রপাত হতে পারে তবে বাড়িতে একটিই দরজা ছিল। সেই দরজার মুখে রাখা একটি সিএনজি চালিত অটোরিকশায়ও আগুন লাগে। ধারণা করা হচ্ছে, অটোরিকশার গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে আগুন মুহূর্তে ছড়িয়ে পড়ে। যার কারণে কেউ ঘর থেকে বের হতে পারেননি। গভীর রাত হওয়ায় প্রতিবেশী ও ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকর্মী আসার আগেই সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে যায়”।

ট্যাগস :

আপনার মতামত লিখুন

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অগ্নিকাণ্ড

আগুনে প্রাণ গেল এক পরিবারের পাঁচজনের

আপডেট সময় ১২:২৪:৪০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৩ জানুয়ারী ২০২৩

রাঙ্গুনিয়ায় বসতবাড়িতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় শিশুসহ একই পরিবারের পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন ওই পরিবারের আরও একজন। 

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে উপজেলার পারুয়া ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ড মহাজন পাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

অগ্নিকাণ্ডে ঘটনায় মৃত ব্যক্তিরা হলেন খোকন বসাকের বাবা কাঙ্গাল বসাক (৬০), মা ললিতা বসাক (৫৭), স্ত্রী লাকি বসাক (৩৩), ছেলে সৌরভ বসাক (১২) ও মেয়ে শায়ন্তী বসাক (৬)। আহত খোকন বসাককে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে, তাঁর শরীরের প্রায় ৮০ ভাগ পুড়ে গেছে বলে জানা গেছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রাঙ্গুনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহাবুব মিল্কি ও রাঙ্গুনিয়া ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান সুমন।

রাঙ্গুনিয়া ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান সুমন বলেন, “বৃহস্পতিবার দিনগত রাত ২টা ১০ মিনিটের দিকে আগুনের খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাঁরা দরজা ভেঙে একজনকে জীবিত উদ্ধার করতে পারলেও আগুনে পুড়ে মারা গেছে ৫জন। এছাড়াও বাড়ির পাঁচটি কক্ষ থাকায় কে কোন কক্ষে শুয়ে ছিলেন, সেটা শনাক্ত করা কঠিন ছিল। ভোর রাত ৪টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ওই বাড়ির রান্নাঘরের চুলা থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে”।

রাঙ্গুনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহাবুব মিল্কি জানান, “পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করেছে। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে”।

পারুয়া ইউপি চেয়ারম্যান একতেহার হোসেন জানান, “স্থানীয় সবজি ব্যবসায়ী খোকন বসাকের বাড়িতে রাত দেড়টার দিকে আগুন লাগে। রান্নাঘর থেকেই আগুনের সূত্রপাত হতে পারে তবে বাড়িতে একটিই দরজা ছিল। সেই দরজার মুখে রাখা একটি সিএনজি চালিত অটোরিকশায়ও আগুন লাগে। ধারণা করা হচ্ছে, অটোরিকশার গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে আগুন মুহূর্তে ছড়িয়ে পড়ে। যার কারণে কেউ ঘর থেকে বের হতে পারেননি। গভীর রাত হওয়ায় প্রতিবেশী ও ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকর্মী আসার আগেই সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে যায়”।