ঢাকা ১২:২৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ই-পেপার দেখুন

নির্বাচনকে ঘিরে কোনো ধরণের সহিংসতা চান না -হামিদুল হক মান্নান

  • বার্তা কক্ষ ::
  • আপডেট সময় ০৯:০৭:৪৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০২১
  • ৯১০ বার পঠিত

বোয়ালখালী প্রতিনিধি :: চট্টগ্রামের বোয়ালখালী উপজেলার করলডেঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে প্রচার প্রচারণায় বাধা দেওয়াসহ কর্মীদের পুলিশি হয়রানির অভিযোগ করেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী (আনারস প্রতিক) মো.হামিদুল হক মান্নান।

রবিবার (২৬ ডিসেম্বর) বিকেলে নিজ বাসভবনে সাংবাদিক সম্মেলন করে তিনি এ অভিযোগ জানান।স্বতন্ত্র প্রার্থী হামিদুল হক মান্নান অভিযোগ করে বলেন, সাদা পোশাকে পুলিশ সার্বক্ষণিক প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর পক্ষে এলাকায় অবস্থান নিয়ে আনারস প্রতিকের কর্মীদের গ্রেফতার ও প্রচার কার্যক্রমে অংশ না নিতে বিভিন্নভাবে হয়রানি করছে। ইতিমধ্যে দুইজন কর্মীকে ধরে নিয়ে ডাকাতি মামলায় চালান দেওয়া হয়েছে। গতকাল ২৫ ডিসেম্বর মাইকিং করার সময় মাইকম্যানকে ধরে নিয়ে পটিয়া থানায় সোর্পদ করেছে এবং বিস্ফোরক ও নাশকতা মামলায় তাকে চালান দেওয়া হয়েছে। অত্যন্ত দরিদ্র পরিবারের সন্তান সে। ছেলেটির বিরুদ্ধে অথচ কোনো মামলা ছিলো না। সে একজন ভালো মেধাবী ছাত্র বলে জানি।

তিনি বলেন, প্রতিনিয়ত হুমকি ধমকি প্রদান ও গায়ে পড়ে সংঘাত সৃষ্টির চেষ্টা করছে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর লোকজন। আমার ও আমার পরিবারের জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর লোকজন সাধারণ ভোটারদের ভয়ভীতি প্রদর্শন করছে। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট দফতরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।নির্বাচনকে ঘিরে কোনো ধরণের সহিংসতা চান না জানিয়ে তিনি বলেন, জনগণ যাকে ভোট দিবে সে নির্বাচিত হবেন। কোন সংঘাতের দরকার নেই প্রয়োজনে চেয়ারম্যান হবো না। এলাকাবাসী যে সিদ্ধান্ত দেবে মেনে নেবো। এসময় তিনি নির্বাচনী সুষ্ঠু পরিবেশ সৃষ্টি করে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরী করার জন্য নির্বাচন কমিশনের কাছে দাবি জানাচ্ছি।
স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. হামিদুল হক মান্নান করলডেঙ্গা ইউপির বর্তমান চেয়ারম্যান। তিনি টানা দুইবার এ ইউপিতে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এর আগে তার বড় ভাই নজরুল ইসলাম বাচা করলডেঙ্গা ইউপির চেয়ারম্যান ছিলেন।এব্যাপারে বোয়ালখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আব্দুল করিমের কাছে জানতে চাইলে তিনি এখন অসুস্থ ডাক্তারের কাছে পরে কথা বলবেন বলে জানান।

ট্যাগস :

আপনার মতামত লিখুন

নির্বাচনকে ঘিরে কোনো ধরণের সহিংসতা চান না -হামিদুল হক মান্নান

আপডেট সময় ০৯:০৭:৪৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০২১

বোয়ালখালী প্রতিনিধি :: চট্টগ্রামের বোয়ালখালী উপজেলার করলডেঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে প্রচার প্রচারণায় বাধা দেওয়াসহ কর্মীদের পুলিশি হয়রানির অভিযোগ করেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী (আনারস প্রতিক) মো.হামিদুল হক মান্নান।

রবিবার (২৬ ডিসেম্বর) বিকেলে নিজ বাসভবনে সাংবাদিক সম্মেলন করে তিনি এ অভিযোগ জানান।স্বতন্ত্র প্রার্থী হামিদুল হক মান্নান অভিযোগ করে বলেন, সাদা পোশাকে পুলিশ সার্বক্ষণিক প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর পক্ষে এলাকায় অবস্থান নিয়ে আনারস প্রতিকের কর্মীদের গ্রেফতার ও প্রচার কার্যক্রমে অংশ না নিতে বিভিন্নভাবে হয়রানি করছে। ইতিমধ্যে দুইজন কর্মীকে ধরে নিয়ে ডাকাতি মামলায় চালান দেওয়া হয়েছে। গতকাল ২৫ ডিসেম্বর মাইকিং করার সময় মাইকম্যানকে ধরে নিয়ে পটিয়া থানায় সোর্পদ করেছে এবং বিস্ফোরক ও নাশকতা মামলায় তাকে চালান দেওয়া হয়েছে। অত্যন্ত দরিদ্র পরিবারের সন্তান সে। ছেলেটির বিরুদ্ধে অথচ কোনো মামলা ছিলো না। সে একজন ভালো মেধাবী ছাত্র বলে জানি।

তিনি বলেন, প্রতিনিয়ত হুমকি ধমকি প্রদান ও গায়ে পড়ে সংঘাত সৃষ্টির চেষ্টা করছে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর লোকজন। আমার ও আমার পরিবারের জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর লোকজন সাধারণ ভোটারদের ভয়ভীতি প্রদর্শন করছে। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট দফতরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।নির্বাচনকে ঘিরে কোনো ধরণের সহিংসতা চান না জানিয়ে তিনি বলেন, জনগণ যাকে ভোট দিবে সে নির্বাচিত হবেন। কোন সংঘাতের দরকার নেই প্রয়োজনে চেয়ারম্যান হবো না। এলাকাবাসী যে সিদ্ধান্ত দেবে মেনে নেবো। এসময় তিনি নির্বাচনী সুষ্ঠু পরিবেশ সৃষ্টি করে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরী করার জন্য নির্বাচন কমিশনের কাছে দাবি জানাচ্ছি।
স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. হামিদুল হক মান্নান করলডেঙ্গা ইউপির বর্তমান চেয়ারম্যান। তিনি টানা দুইবার এ ইউপিতে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এর আগে তার বড় ভাই নজরুল ইসলাম বাচা করলডেঙ্গা ইউপির চেয়ারম্যান ছিলেন।এব্যাপারে বোয়ালখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আব্দুল করিমের কাছে জানতে চাইলে তিনি এখন অসুস্থ ডাক্তারের কাছে পরে কথা বলবেন বলে জানান।